Fri. Sep 18th, 2020

দেখার কেউ নেই স্বরূপকাঠি কৌরিখাড়া খেয়াঘাটের ঘাটলা ও যাত্রী ছাউনি বিপদজনক

সুমন খান স্বরুপকাঠি:

পিরোজপুরের নেছারাবাদ স্বরূপকাঠি  কৌরিখাড়া খেয়াঘাটের দুইপাড়ে দুইটি ঘাটলা ও একটি
যাত্রী ছাউনির নির্মান কাজে চরম অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। নির্মান কাজ
সমাপ্ত করার শেষ পর্যায় কৌরিখাড়া ঘাটের যাত্রী ছাউনির ছাদের মধ্যভাগ
ভেঙ্গে দেবে গেছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে ঠিকাদার একটি লোহার পাইপ বসিয়ে
ভাঙ্গন ঠেকিয়ে তার দায় সেরেছেন। তবে যে কোনো সময় বড় ধরনের প্রানহানীর
আশংকা রয়েই গেছে। প্রয়োজনীয় রড,সিমেন্ট না দিয়ে মাত্র দুই ইঞ্চি পুরু
একটি দুর্বল ছাদ নির্মান করায় এ অবস্থার সৃস্টি হয়েছে। এছাড়াও  নিম্নমানের
মালামাল দিয়ে দুইটি ঘাটলা নির্মান করায় বিভিন্ন জায়গায় ফাটল দেখা দিয়েছে
এবং সিড়ির ধাপ ভেঙ্গে পড়ে যাচ্ছে। পিরোজপুর জেলা পরিষদের অর্থায়নে দশ লাখ
টাকা ব্যায়ে সন্ধ্যা নদীর দুইপাড়ে দুইটি ঘাটলা ও একটি যাত্রী ছাউনি
নির্মান করা হচ্ছে। ওই নির্মান কাজ বাস্তবায়ন করছে মেসার্স শেখ
ইন্টারন্যাশনাল নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। ইতোমধ্যে ওই কাজ
হস্তান্তরের অংশ হিসেবে নাম ফলক স্থাপন করা হয়েছে। স্থানীয় আওয়ামীলীগ
নেতা সালাম রেজা জানান, চিকন রড ও নি¤œমানের ইটের খোয়া দিয়ে ৪টি কলম
(খুঁটি) নির্মান করা হয়েছে। টাই ভিম না দিয়ে সেই দুর্বল খুঁটির উপর মাত্র
দুই ইঞ্চি পুরু ছাদ নির্মান করা হয়। ছাদের সেন্টারিং খোলার সাথে সাথে
মধ্য বরাবর ভেঙ্গে দেবে যায়। পরিস্থিতি সামাল দিতে ঠিকাদার একটি লোহার
পাইপ বসিয়ে ঠেক দিয়ে কাজ সমাপ্ত করেন। এছাড়াও প্রয়োজনীয় রড না দিয়ে ছাদ
নির্মান করায় যে কোনো সময় তা ভেঙ্গে পড়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।
স্থানীয়রা অভিযোগ করেন মাসাধিকাল ধরে এ নির্মান কাজ চললেও একদিনের জন্য
কোনো প্রকৌশলী কাজ তদারকি করতে আসেননি। এদিকে খেয়াঘাটের টোল আদায়কারী আঃ
হাকিম অভিযোগ করেন ঘাটলার সিড়ি নির্মানেও প্রয়োজনীয় রড, সিমেন্ট দেয়া
হয়নি। সে কারনে ঘাটলার বিভিন্নস্থানে ভাঙ্গনের সৃস্টি হয়েছে। আদায়কারী
হাকিম বলেন নদীর পূর্ব পাড়ে স্বরূপকাঠি ঘাটের পুরোনো ঘাটলার সাথে মিলিয়ে
নতুন ঘাটলা বানানো হয়েছে। পরে প্লাস্টার করে নতুন ঘাটলা হিসেবে দেখানো
হয়। এ ঘাটলারও বিভিন্ন জায়গায় ভাঙ্গনের সৃস্টি হয়ে সিড়ির ধাপ গুলো ভেঙ্গে
উঠে যাচ্ছে। এ বিষয় কাজ তদারকির দায়িত্বে থাকা জেলা পরিষদের উপ সহকারী
প্রকৌশলী মো.মনিরুজ্জামান এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন কাজের মান ঠিক
হয়নি এবং ছাদের পুরুত্ব করতে হবে ৫ ইঞ্চি। প্রকৌশলী বলেন ওই কাজগুলো
ভেঙ্গে নতুন করে আবার কাজ করানো হবে। জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা
রেবেকা খান এর মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন দিলেও তার সাথে কথা বলা সম্ভব
হয়নি। জেলা পরিষদের সদস্য (স্বরূপকাঠি থেকে নির্বাচিত) মো. সেলিম মিয়া
বলেন কাজের মান খুবই খারাপ হয়েছে। জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা দেশের
বাইরে রয়েছেন। তিনি দেশে ফেরার পর তাকে জানানো হবে এবং তিনি প্রয়োজনীয়
ব্যবস্থা নিবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

উপদেষ্টা মন্ডলীঃমোঃ দেলোয়ার হোসেন খাঁন(হিউম্যান রাইটস ওয়াচ ট্রাস্ট অব বাংলাদেশ,প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান)
ডঃ দিলিপ কুমার দাস চৌঃ ( অ্যাডভোকেট,সুপ্রিম কোর্ট ঢাকা)
রজত কান্তি চক্রবর্তী সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতিঃ অ্যাডভোকেট সাজ্জাদুর রহমান চৌধুরী ।।আইন সম্পাদকঃ অ্যাডভোকেট আবু সালেহ চৌধুরী।।
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: আজির উদ্দিন (সেলিম)
নির্বাহী সম্পাদক: মোস্তাক আহমদ।। ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: মোঃ দিলোয়ার হোসেন ।I মহিলা সম্পাদক: মোছাঃ হেপি বেগম ।I বার্তা সম্পাদক: .........................
প্রধান কার্যালয় ২/২৫, ইস্টার্ণ প্লাজা,৩য়-তলা ,আম্বরখানা সিলেট-৩১০০।
+8801712-783194 ... 01304006014 dailyhumanrightsnews24@gmail.com
JS security